অনলাইনে স্বাস্থ্য সেবা প্রদান করার নির্ভরযোগ্য একটি প্রতিষ্ঠান।

করোনা কে হেলা করোনা- অধ্যাপক ডা: মাহমুদ বীর প্রতীক জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ।

জগতজুরে করোনার তান্ডব শুরু হয়েছে ।

0

করোনা কে হেলা করোনা। জগতজুরে করোনার তান্ডব শুরু হয়েছে। মানুষের ইতিহাসে এরকম অনেক রোগ মহামারী আকারে দুনিয়ার বহু দেশে বিভিন্ন দেশে অনেক শহর বন্দর জনপদ উজার করে দিয়েছে। কলেরা বসন্ত প্লেগ, ম্যালেরিয়া, যক্ষাতে উনিশ সতকে লন্ডন কলকাতাসহ বহু শহর বিরান হয়ে গেছে । মানুষ বড় অসহায় ছিল। কেন হয প্রতিকার কি কিছুই জানা ছিল না। একমাত্র আল্লাহ ভরসা। এখন আমরা কীভাবে হয় কিভাবে ছড়িয়ে যায় মুটামুটি জানি। তবে প্রথমে কেমনে হলো এ নিয়ে বিতর্ক আছে। সেই ডিম আগে না মুরগি আগের মত। একটা বৈজ্ঞানিক সত্য হলো রোগের কারন ভাইরাস ব্যাকটেরিয়া বা পেরাসাইট প্রকৃতিতে বিদ্যমান। এর মধ্যে আবার ভাইরাস গুলো মহা বজজাত। একেতো কোন ওষুধে মরেনা আবার মাঝে মাঝে নিজেদের আকৃতি ও প্রকৃতিগত আচরন(ক্যারেক্টার) পরিবর্তন করে মানুষের সমাজে প্রতারকরা যেমন চরিত্র বদলায। আর বিভিন্ন ভাইরাস তাদের প্রকৃতির সাথে সামনজস্যপুন্য সময় বেছে নিয়ে মানব সমাজের দুর্বল এলাকায় আক্রমণ করে।

এগুলোর বিস্তারের জন্যে বাহকের প্রয়োজন। বায়ু পশুপাখী পানি হলো মাধ্যম। তাই ভাইরাস যেভাবৈই হোক নাকেন বিস্তারের মাধ্যম নিয়ন্ত্রণই আসল সমাধান। মাসক পরে ঘুরলেই মুক্তি হবে এধারনা ঠীকনা তবে আমাদের উচ্চমাত্ররার বায়ু দুষনের অনেক ক্ষতিকর দিক থেকে রেহাই পাওয়া যাবে । ভাইরাস ঢুকলেই শেষ হয়ে গেলামনা। কথজন মারাযায় । এর চেয়ে রাস্তাঘাটে এক্সিডেন্টে অনেক বেশি মানুষ মারা যায়। সবচেয়ে বেশি দরকার শরীরে রোগ প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ানো। যেমন বাড়ির দরজা শক্ত থাকলে যেমন বাড়িতে ডাকাত ঢুকতে পারেনা। দেহের প্রতিরোধ খমতা ঠিক থাকলে ভাইরাস কাবু করতে পারবনা। দেহের প্রতিরোধ বারানোর জন্য খাদ্যে শাক সবজি মাছ মাংস দুধ ডিম সাধ্যমত খেতে হবে সাথে দেশি ফলমুল খাওয়ার অভ্যাস করতে হবে । আমাদের দেশের টমেটো, শষা, পেয়ারা, বরই, জামবুরা, আমড়া, কামরাংগা, কলা, খুব পুষ্টিকর,। প্রতিদিন কিছু খেতে হবে । ভাইরাসের বিরুদ্ধে দুটি বনৌষুধী হলো নিমপতা ও কাচা রসুন । দৈনিক দুতিনটা নিমপাতা চিবিয়ে খেলে অ্যান্টি ভাইরাস হিসাবে কাজ করে । এক কোয়া কাচা রসুন এন্টিঅকসিডেন্ট হিসাবে দেহের প্রতিরোধ ক্ষমতা বাড়ায় ।

লেখক : অধ্যাপক ডা: মাহমুদ বীর প্রতীক জনস্বাস্থ্য বিশেষজ্ঞ ।
যদি কোন প্রশ্ন থাকে 01819019746 এ যোগাযোগ করতে অনুরোধ করা গেল ।

Leave A Reply

Your email address will not be published.